বজ্রপাতের উচ্চ মাত্রার বিদ্যুৎ প্রবাহ অনেক সময় ৪০০ কিলো অ্যাম্পিয়ার ছাড়িয়ে যায়। এত উচ্চমাত্রার বিদ্যুৎ প্রবহের ফলে তাপমাত্রা ৫০,০০০ ডিগ্রি ফারেনহাইট বা ২৭,৭৬০ ডিগ্রি সেলসিয়াসে পৌঁছাতে পারে। এই প্রচণ্ড উত্তাপে আগুন ধরে যেতে পারে, মানুষসহ জীবজন্তু মারা যেতে পারে। বাড়িঘরের বৈদ্যুতিক সরঞ্জামও বজ্রপাতের ফলে নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

বজ্রপাত থেকে বাড়ি-ঘর সুরক্ষিত রাখতে যে ব্যবস্থাগুলো নেয়া হয় তার মধ্যে বজ্র নিরোধক দণ্ড অন্যতম।

⚡⚡⚡⚡ কি এই বজ্র নিরোধক ?? 

দালানের সর্বোচ্চ বিন্দু থেকে মাটি পর্যন্ত বৈদ্যুতিক পথ তৈরী করাই বজ্রনিরোধক ব্যবস্থার উদ্দেশ্য। একটি দালানের বজ্র প্রতিরোধ ব্যবস্থায় থাকে একটি এয়ারটার্মিনাল বা লাইটনিং রড যা দালানের সর্বোচ্চ বিন্দু যথা-সাইলো, ছাদ বা চিমনিতে স্থাপন করা হয়।
এছাড়া থাকে সংযোগ তার ও গ্রাউন্ডিং ইলেকট্রোড। বজ্র প্রতিরোধের জন্য দালানের বৈদ্যুতিক ব্যবস্থায় অবশ্যই ভাল গ্রাউন্ডিং থাকতে হবে এবং তা আলাদা গ্রাউন্ড সিস্টেমের সাথে যুক্ত হতে হবে।

বজ্রপাতে কোন বিল্ডিংয়ের ক্ষতির সম্ভাব্যতা কমিয়ে আনা যায় যদি উপযুক্ত বজ্রনিরোধক যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হয়।

⚡⚡⚡⚡ কি দিয়ে তৈরি হয়?

তামা, অ্যালুমিনিয়াম প্রভৃতি ধাতুর বৈদ্যুতিক রোধের মাত্রা অনেক কম। তাই সাধারণত এসব ধাতু দিয়েই বজ্র নিরোধক দণ্ড তৈরি করা হয়। মোটামুটিভাবে দুই সেন্টিমিটার ব্যাসের তামা বা অ্যালুমিনিয়ামের তৈরি ধাতব দণ্ড ভবনের ওপর খাড়াভাবে বসিয়ে দেয়া হয়। আর সেটি এক ইঞ্চি বা কাছাকাছি ব্যাসের পরিবাহী তারের মাধ্যমে ভূমিতে সংযুক্ত রাখা হয়।

বজ্র নিরোধক দণ্ড যেভাবে কাজ করে

প্রচলিত একটি ধারণা হচ্ছে বজ্র নিরোধক দণ্ড বজ্রপাত আকর্ষণ করে। আসলে বিষয়টি সেরকম নয়। বজ্র নিরোধক দণ্ড দূর থেকে বজ্র বিদ্যুৎ টেনে আনে না। এটি থাকুক আর নাই থাকুক বজ্র বিদ্যুৎ যেখানে আঘাত করার যেখানেই আঘাত করবে। বজ্র নিরোধক দণ্ডের কাজ হচ্ছে উচ্চমাত্রার বিদ্যুতকে সহজে নিরাপদে মাটিতে পৌঁছানোর সুযোগ করে দেয়া।

প্রবাহের সময় বাধা না পেলে বিদ্যুৎ প্রবাহের ফলে পরিবাহী উত্তপ্ত হয় না, ফলে আগুন ধরার ঝুঁকিও থাকে না। বজ্র নিরোধক দণ্ড এ কাজটিই করে দেয়। বজ্র বিদ্যুৎ সরাসরি বজ্র নিরোধক দণ্ডে আঘাত করলে তো সমস্যাই নেই আর কাছাকাছি আঘাত করলেও কম রোধের পথ পাওয়ার কারণে (বজ্র নিরোধক দণ্ডের কারণে) সে বিদ্যুৎ লাফিয়ে বজ্র নিরোধক দণ্ড পর্যন্ত পৌঁছায় এবং সেখান থেকে মাটিতে চলে যায়।

কিভাবে বিদ্যুৎ নিরোধক স্থাপন করতে হবে?

দালানের ছাদে দৈর্ঘ্য বরাবর ২৫ ফুট পর পর লাইটনিং রড স্থাপন করতে হবে। লাইটনিং রড এর ব্যাস সাধারণত ৫/৮” এবং উচ্চতা ১-২ ফুট পর্যন্ত হয়। দালানের প্রত্যেক কর্ণারে আর্থিং সিস্টেমের সংযোগ থাকা আবশ্যক। বড় দালানের ক্ষেত্রে (পরিধি ২৫০ ফুট এর বেশি) অতিরিক্ত গ্রাউন্ডিং সিস্টেম থাকলে ভাল হয়। মাটিতে ১০০ ফুট পর একটি গ্রাউন্ডিং সিস্টেম থাকা দরকার।

প্রধান তার একটি আর্থিং থেকে শুরু করে প্রত্যেক লাইটনিং রড এর সাথে সংযোগ শেষে অন্য কর্ণারের আর্থিংয়ে গিয়ে শেষ হবে। বৈদ্যুতিক গ্রাউন্ড সিস্টেম ও লাইটনিং গ্রাউন্ড সিস্টেম পরস্পরের সাথে সংযুক্ত থাকা প্রয়োজন। দালানের ভূ-গর্ভস্থ ধাতব পাইপ লাইন থাকলে গ্রাউন্ড সিস্টেমের সাথে সংযুক্ত করতে হবে। গ্রাউন্ড এর সাথে সংযোগ দেয়ার জন্য গ্রাউন্ড রড ব্যবহার করা হলে গ্রাউন্ড রডগুলো পুরোপুরি মাটির ভিতর ঢুকিয়ে উপযুক্ত ক্লাম্প দিয়ে তারের সংযোগ দিতে হবে।

প্রাকৃতিক সুরক্ষা

গ্রামাঞ্চলের ছোট ছোট বাড়ি-ঘরকে সুরক্ষা দেয়ার ক্ষেত্রে তালগাছের মত উঁচু গাছ বেশ কাজে আসে। কাছাকাছি পরিবাহী পদার্থ পাওয়ার কারণে বজ্র বিদ্যুৎ বাড়ি-ঘরের বদলে গাছকে আঘাত করে।

 

Author:
Engr.Towhidul Islam

For Civil Engineering job study, practical field study & for anything about Civil Engineering join our group

Facebook Page: https://www.facebook.com/DesignIntegrityBd
Facebook Group: https://www.facebook.com/groups/CivilianStudyZone

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here