বাপাউবো ভাইভা প্রস্তুতি

0
350
বাংলাদেশ পানি উন্নয়ন বোর্ডের লিখিত পরীক্ষায় যারা উত্তীর্ণ হয়েছেন, সবাইকে শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
নব্বই দশকের আগে বাপাউবো স্ব-ব্যবস্থাপনায় নিয়োগ পরীক্ষা নিতো। ১৯৯২-৯৩ এর দিক থেকে লিখিত পরীক্ষার ব্যবস্থাপনার দায়িত্ব দেয়া হয় বুয়েটকে। সেই ধারাবাহিকতার পরিবর্তন ঘটিয়ে এবার নিজ ব্যবস্থাপনায় লিখিত পরীক্ষা আয়োজন করেছে পানি উন্নয়ন বোর্ড।
অভ্যস্ত না থাকায়, অনেকের কাছেই এবারের রিটেন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ও আনুষঙ্গিক বিষয়াদি ছিলো যথেষ্ট প্রতিকূল। তাই, নতুন এই চ্যালেঞ্জকে অতিক্রম করে যারা লিখিত পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়েছেন, তাদের জন্য রইলো অভিবাদন।
সপ্তাহ খানেকের মধ্যেই শুরু হতে যাচ্ছে মৌখিক পরীক্ষা। বসে থাকার সুযোগ নেই। যে ডকুমেন্টসগুলো প্রস্তুত করতে বলা হয়েছে, সেগুলো রেডি করে ফেলুন। আর নিজেকে ভাইভার জন্য শাণিত করে নিন।
১। নাম সমাচারঃ
বাপাউবো ভাইভা বোর্ডে আমাকে প্রথম যে প্রশ্নটি করেছিলো, তা হলো আমার নামের অর্থ আর ইতিহাস। কমন প্রশ্ন। আমিও ছক্কা মেরেছি। টানা পাঁচ মিনিটের মতো ভাষণ দিয়েছি। স্যারেরা খুব এপ্রেশিয়েট করেছেন। আর প্রথম প্রশ্ন ভালো করে ট্যাকেল দিতে পারায় আমারও আত্মবিশ্বাস অনেকগুণ বেড়ে গিয়েছিলো।
তাই, নিজের নাম+পিতার নাম+মাতার নাম — এগুলোর অর্থ , ইতিহাস, বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব জেনে যাবেন।
২। নিজ জেলাঃ
জেলার ইতিহাস, দর্শনীয় স্থান, বিখ্যাত ব্যক্তিত্ব, বিখ্যাত পণ্য। ওয়েবসাইটে গিয়ে নিজের জেলার ব্র্যান্ডিংটা জেনে নেবেন। যেমনঃ নারায়ণগঞ্জ জেলার ব্র্যান্ডিং করা হয়েছে- ‘জামদানি পণ্য’ দ্বারা।
বাপাউবো যেহেতু নদী নিয়ে কাজ করে, তাই নিজের জেলার বিখ্যাত নদীগুলোর নামও জেনে যাবেন।
আমাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিলো- চাঁদপুরে বাপাউবোর কোন প্রজেক্ট চলমান আছে?
তাই, নিজের জেলায় বাপাউবোর কোন বড় প্রজেক্টের কাজ চলমান থাকলে বা ইতোপূর্বে সমাপ্ত হয়ে থাকলে সেটা একটু জেনে যাবেন।
৩। মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসঃ ১৯৪৭ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত ইতিহাসের টার্নিং পয়েন্টগুলো অবশ্যই পড়ে যাবেন।
আমাদের সময় একজনকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিলোঃ ৭০ এর নির্বাচন কত তারিখে হয়েছিলো, এবং আওয়ামী লীগ কতটি আসন জয় করেছিলো? এবং এই প্রশ্নটা নিয়ে বেশ ঘুরিয়েছিলেন ভাইভা বোর্ডের স্যারেরা।
৪। বঙ্গবন্ধুঃ বঙ্গবন্ধুর সাথে পানি উন্নয়ন বোর্ডের অম্লান স্মৃতি জড়িয়ে আছে। স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু পানি উন্নয়ন বোর্ডকে প্রেসিডেনশ্যাল অর্ডার দিয়ে সায়ত্ত্বশাসন প্রদান করেন। তাই জাতির পিতার সম্বন্ধে ভালো করে জেনে যাবেন।
আমাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছিলোঃ জাতীয় শিশু দিবস কবে? ওই দিন কী হয়েছিলো? ২০২০ সালের ১৭ই মার্চ বঙ্গবন্ধুর কত তম জন্মদিবস- ইত্যাদি।
৫। কারেন্ট জবঃ এই বিষয়ে মোটামুটি সবাইকেই প্রশ্ন আস্ক করে। কাজেই, যারা ইতোমধ্যে কোন জবে আছেন, ভালো করে নিজের কাজগুলো জেনে যাবেন।
যারা জবে নেই, কেন নেই- সেই উত্তরও প্রস্তুত করে যাবেন। এটা নিয়ে আমাকে অনেক ক্ষণ জিজ্ঞেস করেছিলো। সবাইকেই করে।
অবশ্য এ বছর ‘কোভিড মহামারী’ একটা ভালো এসকেইপ হতে পারে। টিউশনি করে চলছেন, এটাও বলতে পারেন।
৬। কারেন্ট এফেয়ার্সঃ [less important]
ভাইভা রুমে কিন্তু টিভি আছে, সেখানে খবর চলে। আর টিভি না থাকলেও স্যারেরা হাতে মোবাইলে খবর পড়তে থাকেন। তাই, কোন গরম খবর থাকলে একটু জেনে নিতে পারেন।
যে দিন ভাইভা দেবেন, ওই দিনের বঙ্গাব্দ, খ্রিষ্টাব্দ, হিজরি তারিখ জেনে যাবেন। ঐতিহাসিক ঘটনা ঘটে থাকলে জেনে যাবেন। আপনার জন্মদিনের বাংলা তারিখ ও ঐতিহাসিক ঘটনা জেনে যাবেন।
তবে, আশা করি, সাম্প্রতিক ঘটনাবলি না জানলেও খুব একটা খারাপ ইম্প্রেশন হবে না।
৭। বাপাউবো সংক্রান্তঃ
vision, mission, কী করে। কেন এখানে চাকরি করতে চান। অরগ্যানোগ্রাম। (পানি নীতি, পানি আইন এসব দরকার নেই)
৮। নিজের মেজর/মাইন
৯। থিসিস টপিক
১০। টেকনিক্যাল পার্ট
কম্পিউটার লিটারেসি সনদ সিভিল ডিপার্টমেন্টের হেড এর কাছ থেকে নিতে হবে। এইটা মেইন কপি। এটা সংরক্ষিত করে রাখা দরকার। ফটোকপি করিয়ে সত্যায়িত করে সেটা জমা দিবেন।
পরীক্ষার দিন বোর্ডে আপনাকে একটি বাংলা বাক্য বলা হবে। যেটার ইংরেজি অনুবাদ কী-বোর্ডে টাইপ করতে দেবে। এতে এক দিকে আপনার ভাষাগত দক্ষতা যাচাই করা হয়ে যাবে, অন্য দিকে কম্পিউটার দক্ষতাও যাচাই হবে।
অনুবাদের ব্যাপারে খুব বেশি ভাবিত হবেন না। মূল ভাব বোঝাতে পারলেই হবে। ভাবানুবাদের চেয়ে আক্ষরিক অনুবাদই শ্রেয় হবে। আমি ভাবানুবাদ করেছিলাম। যিনি চেক করছিলেন, তিনি যথাযথ বাংলা শব্দের ইংরেজি প্রতিশব্দটি খুঁজে পান নি বলে স্বগতোক্তিতে কী যেন বলছিলেন। এজন্য চেষ্টা করবেন, আক্ষরিক অনুবাদ করার।
আমি ল্যাপটপে টাইপ করতে অভ্যস্ত। টাইপিং স্পিড একেবারে খারাপ না। তবে ঐ খানে ডেস্কটপের কী-বোর্ডে একটু প্রবলেম হচ্ছিলো।
এটা নিয়ে এতো দুশ্চিন্তা করবেন না। ইংরেজি বাক্যের শেষে অবশ্যই ফুল স্টপ দেবেন কিন্তু।
শুরু হলো আসল অংশ। আগের কথাগুলো তো গৎ বাঁধা কিছু কথা। ভ্যালু কম। সবাই প্রস্তুতি নেবে, তাই আপনাকেও পিছিয়ে থাকলে চলবে না। এজন্য প্রস্তুতি নেবেন।
কিন্তু টেকনিক্যাল বা ইঞ্জিনিয়ারিং প্রশ্নোত্তরে ভালো করতে না পারলে, মিঠে কথায় চিড়ে ভিজবে না।
আগেই বলেছি, নিজের মেজর মাইনর থেকেই আপনি সিংহভাগ টেকনিক্যাল প্রশ্ন পাবেন। কাজেই ঐ দুটো ভালো করে পড়ে যান। আগের বছরগুলোতে কী ধরনের প্রশ্ন এসেছে, তার কিছু নমুনা তুলে ধরলাম। এগুলো প্রেপারেশন নিয়ে যাবেন।
-কতগুলো indeterminate structure এর SFD, BMD এর কোয়ালিটেটিভ শেইপ আঁকতে দিবে। মাফ নাই। মুখস্ত করে যাবেন। নিচে ছবি সংযুক্ত করে দিলাম। আশা করি, কাজে দেবে।
-positive reinforcement , negative reinforcement কোনটা কী? কেনো? উপরে কোনটা, নিচে কোনটা ?
-স্টীল ভালো নাকি কংক্রিট স্ট্রাকচার ভালো? সুবিধা-অসুবিধা কী?
-কয়টা সফটওয়্যার পারেন? নাম বলুন। [SAP, CAD, ETABs, Staadpro ]
-Column, beam slab এ ফাই এর মান কত?
-Bridge কী? বিস্তারিত।
ব্রিজ ও কালভার্টের পার্থক্য
-পদ্মা সেতু। দৈর্ঘ্য, প্রস্থ, রুট, অর্থনৈতিক সুবিধা
-Underpass, Overpass, grade-separated junction, flyover, cross over, loops
-right of way, roadway, shoulder, camber, carriageway
-channelization, parking module, PIEV time, SSD, PSD
-common Distress in our Roads
-flexible and rigid pavement
-Toll system
-metro-rail, BRT, MRT, LRT
-Traffic Jam কেন হয়?
– বাংলাদেশে জ্যাম কমাবার জন্য কী কী মেথডোলজি ব্যবহার করা হয়েছে? কী কী স্ট্রাকচার আছে?
-Test Names for aggregates: brick, sand, cement, stones
-bitumen test names, values
-বাংলাদেশে রাস্তা বানাতে খরচ অন্য দেশের তুলনায় বেশি হয় কেন? [ মাটি দিয়ে ভরাট করে এমব্যাঙ্কমেন্ট উচু করে নিতে হয় বলে, দুর্নীতি বলবেন না প্লিজ]

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here